Home » ব্লগ » জীবনধারা » ”তুমি কেঁদো না বাবা আগামী ঈদে আমি আবারও বাড়ীতে আসব আবার তোমার সাথে দেখা হবে”।

”তুমি কেঁদো না বাবা আগামী ঈদে আমি আবারও বাড়ীতে আসব আবার তোমার সাথে দেখা হবে”।

মাগরিবের সালাত যেন কোন প্রকারেই শেষই করতে পারছি না। বুকের ভিতর থেকে ডুগরে উথলে কান্না চলে আসছে। এই লেখা যখন লিখছি তখনও ঠিক একই অবস্থা। শুধু বার বার কানের ভিতর একটা কথাই ভেসে আসছে… ’আব্বা আর বোঁধ হয় তোদের সাথে দেখা হবে না…….’। আশির্ধো আমার বাবার এই কথা গুলো কেন জানি বুকের ভিতর উথাল পাথাল সৃষ্টি করে দিচ্ছে। আমি জানি সালাতের ভিতর দুনিয়াবী কোন বিষয়ের মোহ বা মায়ায় পড়ে কান্না করা ঠিক নয় তাতে সালাতের খুশু খুজু নষ্ট হয়, কিন্তু তার পরেও আমার কান্না বাঁধ মানছে না। আমি নিজেকে স্থির রাখতে পারছি না।

বাড়িতে মাকে ফোন দিয়ে প্রতিদিনই খবর নিই। বাবা কানে শুনেন না বলে বাবার সাথে তেমন একটা কথা বলা হয় না মার নিকট থেকেই বাবার শরিরের খবর নিয়ে ফোন রেখে দেওয়া হয়। যখন মাঝে মাঝে মনটা খুব বেশী বাবার জন্য কাঁদে তখন মাকে বলি বাবাকে ফোনটা দেওয়ার জন্য কিন্তু কখনই আর বাবার সাথে কথা বলা হয়না কারণ বাবা এখন আর কানে শুনতে পাননা তাই শুধুই বাবার কথা শুনে সন্তুষ্ট থাকতে হয়। আজ যখন বাবার সাথে কথা বলতে চাইলাম তখন বাবা উপরোক্ত গুলো বলছিলেন আর কান্না করছিলেন…’আব্বা আর বোঁধ হয় তোদের সাথে দেখা হবে না…….’।

কান্নায় আমার হৃদয় দুমড়ে মুছড়ে আসছিল আমি আর কথা বলতে পারলাম না। আব্বার কাছ থেকে মা ফোন নিয়ে আমাকে কান্না জড়িত কন্ঠে সান্থনা দিতে থাকেন…।

চাকুরীর সুবাদে চট্টগ্রাম শহরে বসবাস করি। সাধারণত বছরে দুই ঈদে বাড়ীতে যাওয়া হয়। কারণ ঈদের সময়কার মত বড় ছুটি ম্যানেজ করা কষ্টকর তাছাড়া চাকুরীর দায়িত্ব কর্তব্য এর খাতিরে বড় ছুটি নেওয়াও হয় না, এর পর আবার পথের খরচ ও যাতায়াতের কষ্টতো আছেই। সেই হিসাবে বাড়ীতে গেছি গত কোরবানীর ঈদের সময়। আমার স্পষ্ট মনে আছে কোরবানীর ঈদের ছুটি শেষে যখন চট্টগ্রামের উদ্দেশ্যে বাড়ী ছাড়ছিলাম তখন আব্বা আমাকে জড়িয়ে ধরে কাঁদতে কাঁদতে বার বার জানতে চাইছিলেন…’আবার কবে আসবি আব্বা? আব্বাকে জড়িয়ে ধরে কথা দিয়েছিলাম রোজার ঈদে। কিন্তু সে কথা রাখতে পারলাম না কোভিড-১৯ পরিস্থীতির কারণে। আল্লাহ্ ভালো জানেন বাবাকে আর কখনও বুকে জড়িয়ে ধরে বলতে পারব কিনা  ”তুমি কেঁদো না বাবা আগামী ঈদে আমি আবারও বাড়ীতে আসব আবার তোমার সাথে দেখা হবে”।

Loading spinner

ম.ম.শ ইসলাম প্রিয়

এই প্রতিচ্ছবি টি কোন প্রকার সম্পাদনা ছাড়াই লেখক কর্তৃক প্রকাশিত। এই প্রতিচ্ছবির লেখকের অনুমতি ব্যতিত অন্যকোন মিডিয়াতে প্রকাশ করা আইনত দন্ডনীয় অপরাধ হিসাবে গণ্য হবে।

মন্তব্য যোগ করুন

Most popular

Most discussed